আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন

বাণিজ্যিক কৃষির যুগে নতুন সম্ভাবনা দেখাচ্ছে ‘সজনে’। স্বাস্থ্য ও অর্থ এই দুই বিবেচনায় সজনে হতে পারে লাভজনক এক ফসল। পৃথিবীর অনেক দেশের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও সজনে পাতার বাণিজ্যিক উৎপাদন শরু করেছে কেউ কেউ।

একসময় কৃষকের বসতভিটায় অযত্নে অবহেলায় বেড়ে উঠতো সজনে গাছ। মৌসুমে কিছুটা কদর থাকলেও বছরের অন্যান্য সময় এ গাছটির কোনো গুরুত্বই ছিল না।

সেই সজনে গাছের পাতার বহুমুখি গুণ নিয়ে এখন সরব হয়ে উঠেছে সারাবিশ্বে। পুষ্টি বিবেচনায় দুধ, কমলা, গাজর কিংবা কলার চেয়ে বহুগুণে এগিয়ে সজনে পাতা।

দেশের অনেক জায়গাতেই শুরু হয়েছে পরিকল্পিতভাবে সজনে আবাদ। চুয়াডাঙ্গা সদরের কৃষক আব্দুল কাদের গুণাগুণ বুঝেই পরিত্যক্ত জায়গায় রোপন করেছেন শত শত সজনে গাছ।

বিষয়টি স্থানীয় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তালহা জুবাইর মাসরুরেরও দৃষ্টিতে এসেছে। সজনে পাতার বহুমুখি গুণ নিয়ে উন্নয়ন সংগঠন পর্যায়েও কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন উন্নয়ন কর্মী রাজিব পারভেজ।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সজনে চাষ ও বহুমুখি প্রক্রিয়াজাতকরণে অল্পদিনেই যুক্ত হতে পারে কৃষক ও উদ্যোক্তারা।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করে মন্তব্য করতে লগ ইন করুন লগ ইন

মন্তব্য এর উত্তর দিন

ভিডিও

শেকৃবিতে ছাদকৃষি, জ্যামাইকায় প্রবাসী বাঙালির আঙিনা কৃষি

শেকৃবিতে ছাদকৃষি, জ্যামাইকায় প্রবাসী বাঙালির আঙিনা কৃষি

ছাদকৃষি নিয়ে শুরু হয়েছে বহুমুখি গবেষণা। শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের ছাদে গড়ে তোলা হয়েছে ছাদকৃষির নানা রকমের মডেল। উদ্যোক্তার প্রয়োজন ও উপযোগিতা নিয়েও পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন বিশেষজ্ঞ ও শিক্ষার্থী।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জ্যামাইকায় আঙিনা কৃষির মাধ্যমে সারাটি বছর নিজের হাতে ফলানো সবজির স্বাদ নিচ্ছেন প্রবাসী লাবণী মুস্তাফা।

কৃষি উদ্যানতত্ত্ববিদ ড. প্রফেসর মাহবুব ইসলাম। পেশাগত প্রয়োজনের বাইরেও উদ্ভিদ আর গাছ-গাছালির জীবনপ্রণালি নিয়ে বহুমুখি চিন্তা তার। ছাদকৃষিতে শতভাগ জৈব পদ্ধতির অনুুসরণ কিংবা বৃষ্টির পানি ধরে রেখে ফল ফসলে কাজে লাগানোর সফল পরীক্ষাগুলো তিনি চালান তার ডিপার্টমেন্টের ছাদের মনোরম কৃষিক্ষেত্রে।

সেখানে প্রতিদিনের খাদ্য চাহিদার প্রয়োজনীয় সব সবজি ফসলই ফলছে এখানে। কিন্তু গবেষণার অংশ হিসেবে ভাবা হচ্ছে, অল্প পরিসরে বেশি ফলন তোলার বিষয়।

এসব গবেষণার সঙ্গী হিসেবে রয়েছেন তার সহকর্মী অধ্যাপক ও শিক্ষার্থীরা।

এদিকে দেশের কৃষিচর্চার স্বপ্নকে বিদেশের মাটিতে সফলভাবে বাস্তবায়ন করেছেন জ্যামাইকা প্রবাসী লাবণী মুস্তাফা। তার আঙিনা জুড়ে এখন ফলছে সব রকমের দেশি সবজি ফসল।

লাবণী মুস্তাফা জানিয়েছেন, টেলিভিশন অনুষ্ঠানই তার কৃষির অনুপ্রেরণা।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন

ভিডিও

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবহারিক কৃষি শিক্ষার প্রতিষ্ঠান ‘স্টোন বার্ন’

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবহারিক কৃষি শিক্ষার প্রতিষ্ঠান ‘স্টোন বার্ন’

নাগরিক শিক্ষার্থীদের হাতে-কলমে কৃষি শিক্ষার তৎপরতা শুরু হয়েছে বিশ্বব্যাপী। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্ট চেস্টারে কৃষিশিক্ষা গবেষণা ও বাণিজ্যিক উৎপাদনের প্রতিষ্ঠান স্টোন বার্ন ফুড এন্ড এগ্রিকালচার সেন্টার তারই এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

পাহাড় ঘেরা নৈসর্গিক এক পরিবেশ। সেখানেই ৮০ একর জায়গার ওপর সমন্বিত এক কৃষি খামার। চলছে সনাতন আর আধুনিক কৃষির নানান পরীক্ষা-নীরিক্ষা। বিশেষ করে প্রাকৃতিক পরিবেশে কৃষি কাজের পদ্ধতিগত প্রয়োগ। হাতে-কলমে এই চর্চাগুলো শিখতে যুক্ত হচ্ছে বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থী।

জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে কৃষির মৌলিক পরিবর্তনগুলো আজ উপলব্ধি করছে সারাবিশ্ব। এক্ষেত্রে কৃষির সঙ্গে নতুন প্রজন্মের এই সম্পর্কের উপযোগিতা গভীরভাবে উপলব্ধি করছে স্টোন বার্ন।

কৃষিতে মাটি ও পানি ব্যবস্থাপনা থেকে শুরু করে ফসল তোলা এমনকি রান্না ও পরিবেশনের শিক্ষাও নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রজন্ম।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন

ভিডিও

দেশি পদ্ধতিতে পালন করা গরুতেই এবার লাভবান খামারি

দেশি পদ্ধতিতে পালন করা গরুতেই এবার লাভবান খামারি

দেশব্যাপী কোরবানির হাটগুলোতে এখন চলছে শেষ মুহূর্তের কেনাবেচা। গতবারের মতো এবারও দেশি গরুর চাহিদা বেশি। এক্ষেত্রে ক্রেতা যেমন সচেতন হয়েছেন, সতর্ক হয়েছেন খামারিরাও।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের হিসেবে, কোরবানির বাজারে এবার বিকিকিনি হচ্ছে প্রায় এক কোটি ১৬ লাখ ২৭ হাজার পশু। এর মধ্যে বড় অংশটিই গরু। আবার হাটে ওটা গরুর বড় অংশটিও দেশীয় পদ্ধতিতে পালন করা।

নরসিংদীর শিবপুরের তরুণ খামারি কিবরিয়া গাজী বড় বিনিয়োগে এবার প্রস্তুত করেন ২’শ গরু।

তার দাবি দেশীয় এই স্বাস্থ্যকর পদ্ধতি গরু মোটাতাজা করার জন্য সময় সাপেক্ষ, তবে বেশি লাভজনক ও তৃপ্তিদায়ক।

এই খামারি বলছেন, গরুর খামার গড়ে তোলার ক্ষেত্রে উদ্যোক্তারা এখন অনেক উৎসাহী। সঠিক নিয়ম যারা মেনে চলছেন তারা লাভবান। কিন্তু গরু আমদানির ক্ষেত্রে সরকারি নীতি সহায়তা অনেক বেশি জরুরি।

গত বছর কোরবানিতে জবাই হয়েছিল ১ কোটি চার লাখ ২২ হাজার পশু। এবার চাহিদার তুলনায় দেশি পশুর যোগান অনেক বেশি।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন

ভিডিও

দেশি পদ্ধতিতে পালন করা গরুতেই এবার লাভবান খামারি: শাইখ সিরাজ

দেশি পদ্ধতিতে পালন করা গরুতেই এবার লাভবান খামারি: শাইখ সিরাজ

দেশব্যাপী কোরবানির হাটগুলোতে এখন চলছে শেষ মুহূর্তের কেনাবেচা। গতবারের মতো এবারও দেশি গরুর চাহিদা বেশি। এক্ষেত্রে ক্রেতা যেমন সচেতন হয়েছেন, সতর্ক হয়েছেন খামারিরাও।

প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের হিসেবে, কোরবানির বাজারে এবার বিকিকিনি হচ্ছে প্রায় এক কোটি ১৬ লাখ ২৭ হাজার পশু। এর মধ্যে বড় অংশটিই গরু। আবার হাটে ওটা গরুর বড় অংশটিও দেশিয় পদ্ধতিতে পালন করা। নরসিংদীর শিবপুরের তরুণ খামারি কিবরিয়া গাজী বড় বিনিয়োগে এবার প্রস্তুত করেন দুইশ গরু।

তার দাবি দেশিয় এই স্বাস্থ্যকর পদ্ধতি গরু মোটাতাজা করার জন্য সময় সাপেক্ষ, তবে বেশি লাভজনক ও তৃপ্তিদায়ক।

এই খামারি বলছেন, গরু খামার গড়ে তোলার ক্ষেত্রে উদ্যোক্তারা এখন অনেক উৎসাহী। সঠিক নিয়ম যারা মেনে চলছেন তারা লাভবান। কিন্তু গরু আমদানির ক্ষেত্রে সরকারি নীতি সহায়তা অনেক বেশি জরুরি।

গত বছর কোরবানিতে জবাই হয়েছিল ১ কোটি চার লাখ ২২ হাজার পশু। এবার চাহিদার তুলনায় দেশি পশুর জোগান অনেক বেশি।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন

ভিডিও

চট্টগ্রামে ভবনের অংশীদারদের মিলিত ছাদকৃষি

চট্টগ্রামে ভবনের অংশীদারদের মিলিত ছাদকৃষি

চট্টগ্রামের লেকভিউ এলাকায় আবাসিক ভবনের অংশীদাররা এক হয়ে গড়ে তুলেছেন মনোরম ছাদকৃষি। দেশি-বিদেশি ফুলের এক সংগ্রহশালা গড়ে উঠেছে সেখানে।

পাঁচ বছর আগে এই ভবনটি গড়ে তুলেছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের কয়েকজন চিকিৎকসহ সমমনা কয়েকজন পেশাজীবী। ছাদটিই যেন এই আবাসিক ভবনটির প্রাণকেন্দ্র। বৈচিত্র্যময় ফুলের এই সংগ্রহশালা শোনাচ্ছে ব্যতিক্রম এক ছাদ কৃষির গল্প।

উদ্যোক্তারা বলছেন শুধু ফুলের সুরভি গ্রহণ করাই মূল উদ্দেশ্য নয়, বরং দেশি বিদেশি ফুলের নানা বৃত্তান্ত মানুষের সামনে তুলে ধরতে চান এই সংগ্রশালা সমৃদ্ধ করতে ভূমিকা রাখা ডা. শাকিল আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমানসহ অন্যরা।

এই ভবনের সবার কাছেই গর্বের এক ঠিকানা এই ছাদকৃষি।

অন্যদিকে গ্রীষ্মের শেষ দিকে এসে আঙিনা কৃষি নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড প্রবাসী সৈয়দ জাকি হোসেন ও রাহাত হোসেন দম্পতি। তাদের বিশাল বাসভবনের চারপাশ জুড়েই বাংলাদেশি ফল-ফসলের পসরা।

সম্পূর্ণ খবরটি পড়ুন

শীর্ষ সংবাদ

© স্বত্ব দা এগ্রো নিউজ, ফিশ এক্সপার্ট লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত - ২০১৯
ফোন: ০১৭১২-৭৪২২১৭
ইমেইল: info@theagronews.com